স্ত্রীকে কুপিয়ে খুন করে,গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা স্বামীর।ঘটনা দক্ষিণ ২৪ পরগনার ঢোলাহাটের।দিগম্বরপুরের।

 

স্ত্রীকে খুনের চেষ্টা করে গলায় ফাঁস লাগিয়ে নিজেই আত্মহত্যা করেছেন স্বামী।মৃতের নাম,গোবিন্দ পাত্র,বয়স ৫১।তিনি উত্তরপাড়ার বাসিন্দা।এই অভিযোগে রীতিমতো চাঞ্চল্য ছড়ালো ঢোলাহাট থানার অন্তর্গত দিগম্বরপুর এলাকায়।পুলিশ সূত্রে জানা গেছে,পারিবারিক বিবাদের জেরে স্ত্রীকে কুপিয়ে খুনের চেষ্টা করে নিজেই আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছেন গোবিন্দ বাবু।তার স্ত্রী অলোকা পাত্র,বয়স ৪৩,গুরুতর জখম অবস্থায় গদামথুরা প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে চিকিৎসাধীন।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে খবর, বিয়ের পর থেকেই অভাবের সংসার অর্থনৈতিক কারনকে ঘিরে গোবিন্দ অলকার মধ্যে মনমালিন্য শুরু হয়েছিল।আচমকা অলোকা তার দুই ছোট সন্তান কে সঙ্গে নিয়ে দিল্লি চলে যান হঠাৎ করে মাস খানেক আগেই বাড়ি ফিরে আসেন এবং আসার পর থেকেই স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে আবার বিবাদ শুরু হয়। প্রতিবেশীরা জানান,গোবিন্দ বাবু প্রথমে কুপিয়ে তারপর ভারী কিছু দিয়ে মেরে খুনের চেষ্টা করেন অলোকাদেবীকে। তারপর গোবিন্দবাবু বাড়ি থেকে পালিয়ে যান।পরে খাটের নীচে রক্তাত্ব দেহটি বস্তাবন্দি অবস্থায় চোখে পড়ে তার ছেলেদের।আহত অলোকাকে স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হয়।অপরদিকে ইন্দ্র নারায়নপুর মাঝেরপাড়ার একটি গাছে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পাওয়া যায় গোবিন্দবাবুকে।তাদের বড় ছেলে দেবু জানান,গোবিন্দয়-অলোকার মধ্যে ঝামেলাটা অনেকদিন ধরেই মিটিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছিল,কিন্তু লাভ হয়নি।

 

Recommended For You